এয়ারটেল সম্পর্কে

এয়ারটেল তার পথচলা শুরু করেছিল একটি খুবই সাধারণ ভাবনা থেকে। আমরা জীবনের কোন জিনিসটি সবচেয়ে বেশি উপভোগ করি? উত্তরটি খুবই সহজ। বন্ধুত্ব! আর তাই, জীবনের প্রতিটি ক্ষুদ্র সময়কে বন্ধুদের সাথে অনলাইন বা অফলাইনে উদযাপন করার এই উদ্দীপনা নিয়ে ২০১০সালে বন্ধুদের ১নম্বর নেটওয়ার্ক এয়ারটেল তার যাত্রা শুরু করে। এয়ারটেল সবসময়ই বাংলাদেশের তরুণদের অর্থপূর্ণ চিন্তা ভাবনা, প্রগতিশীল মুক্তচিন্তা এবং বিনোদনের রঙিন দুনিয়ায় নিজেদের একীভূত করে নিজদের এগিয়ে নিতে উৎসাহিত করে। শক্তিশালী নেটওয়ার্ক এবং সুবিধাজনক মূল্যের অফারগুলি তরুণদের সাথে বন্ধুত্বের সর্বাধিক নেটওয়ার্ক গঠন করেছে। 

ভারতি এন্টারপ্রাইজ অফ ইন্ডিয়া-এর একটি আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড এয়ারটেল সাবস্ক্রাইবারের উপর ভিত্তি করে পৃথিবীর তৃতীয় বৃহত্তর মোবাইল ফোন অপারেটর। এরই মাঝে, মালয়েশিয়ার আজিয়াটা গ্রুপ এবং ভারতি এন্টারপ্রাইজ অফ ইন্ডিয়া ২8 শে জানুয়ারী, ২০১২ তারিখে বাংলাদেশে তাদের নিজ নিজ অপারেশন একীভূত করার জন্য সম্মত হয়। রবি একীভূত কোম্পানি হিসেবে ১৬ নভেম্বর ২০১৬ সালে তার বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করে। রবি ও এয়ারটেলের এই একই কোম্পানিতে রুপান্তরিত হওয়ায়, রবি তার অনুমোদিত  লাইসেন্সের অধীনে বাংলাদেশে এয়ারটেল ব্র্যান্ডটির ০১৬ সিরিজের নম্বর-এর গ্রাহকদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। 

২০১৮সালের আগস্ট পর্যন্ত ১৩.৪মিলিয়ন বন্ধু নিয়ে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বন্ধুদের নেটওয়ার্ক এখন এয়ারটেল। কোম্পানিটি 4G নেটওয়ার্ক নিয়ে দেশজুড়ে বিস্তৃত ৫০০থানায় ৯০ভাগ জনসংখ্যাকে আওতায় এনে তার কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

এয়ারটেল সমাজের প্রতি একটি দায়বদ্ধ ব্র্যান্ড হিসেবে দেশের দীর্ঘস্থায়ী উন্নয়নে আইসিটি শিক্ষাক্ষেত্র, স্বাস্থ্য ও পরিবেশ খাতে উদাহরণ সৃষ্টিকারী কর্পোরেট রেসপন্সিবিলিটি উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। তরুণদের ক্ষমতায়ন এবং তাদের মনের কথা বলতে দেওয়া সবসময়ই এয়ারটেলের মূল লক্ষ্য। তাই এয়ারটেল দুহাত মেলে সবাইকে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বন্ধুত্বের নেটওয়ার্কে আমন্ত্রণ জানায়।